তাজা ব্রেকিং ! যা করে পালিয়ে গেছেন বিএনপি নেতারা : মন্তব্য কাদেরের


আগামী জাতীয় নির্বাচনের জন্য বিএনপির মনোনয়ন দেয়ার ক্ষেত্রে অর্থের লেনদেনের অভিযোগ করেছেন ওবায়দুল কাদের। ক্ষমতাসীন দলের নেতার অভিযোগ, টাকা নিয়েও অনেককে মনোনয়ন দেয়া হয়নি। এ কারণে তারা বিএনপির বহু কেন্দ্রীয় নেতাকে খুঁজছে।

বৃহস্পতিবার বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে স্বেচ্ছাসেবক দলের এক আলোচনায় এ কথা বলেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

কাদেরের অভিযোগ, টাকা নিয়ে মনোনয়ন দিতে না পেরে বিএনপির অনেক নেতা পালিয়ে গেছেন। বলেছেন, ‘বিএনপিতে যারা টাকা দিয়েছেন তারা দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন মনোনয়নে জন্য। এখন প্রতিক্রিয়টা দেখার জন্য আমরা অপেক্ষায় আছি।’

এবার বিএনপি ২৯৫টি আসনে মনোনয়নের চিঠি বিতরণ করেছে আটশর বেশি। তবে জমা পড়ে ৬৯৬টি। যাচাইবাছাইয়ে বাদ পড়ে যান ১৪১ জন। তবে আপিলে বেশ কয়েকজন প্রার্থিতা ফিরে পেয়েছেন।

৩৮টি ছাড়া বাকি প্রায় সব আসনেই বিএনপির একাধিক নেতাকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। মামলা সংক্রান্ত জটিলতা আর খেলাপি ঋণের কারণে বাদ পড়েছেন বহুজন।

কাদেরের দাবি, বিএনপি যে ব্যাখ্যা দিয়েছে তা সত্য নয়। প্রতি আসনে এত বেশি প্রার্থী দেয়ার কারণ মনোনয়ন বণিজ্য।

‘টাকা পয়সা ছাড়া বিএনপিতে মনোনয়ন, এটা কল্পনাও করা যায় না। যারা মনোনয়ন পায়নি তারা এখন টাকার জন্য বিএনপির শীর্ষ নেতাদের দ্বারে দ্বারে ঘুরছে বলে আমরা খবর পাচ্ছি।’

‘শীর্ষ নেতাদের কেউ কেউ আবার মনোনয়নের টাকা নিয়ে ঢাকা ছেড়ে পালিয়ে গেছেন।’

এবার মনোনয়ন বাণিজ্যের খবর এসেছে আওয়ামী লীগের শরিক জাতীয় পার্টির বিরুদ্ধেও। এই অভিযোগের পর মহাসচিবের পদ হারিয়েছেন এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদার।

তবে আওয়ামী লীগ এই সমস্যা থেকে মুক্ত বলে দাবি করেন কাদের। বলেন, ‘আমি এতটুকু বলতে পারি এই মনোনয়ন বাণিজ্য আওয়ামী লীগকে স্পর্শ করেনি। এতে করে বড় ধরনের স্বস্তি আমরা পাচ্ছি। আমাদের প্রতিপক্ষ ঐক্যফ্রন্টের যে মনোনয়ন প্রক্রিয়া তাতে ১৪১ জন বাদ পড়ার পরও ৫৫৫ জন রয়ে গেছে। তাদের মনোনয়নের যে রমরমা কারবার এবার সবাই লক্ষ্য করেছে।’

ঢাকাটাইমস

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*