ব্রেকিং ব্রেকিং ! কুমিল্লায় বিএনপির দুই প্রার্থী আপিলে যা ফিরে পেলেন


আপিল করে কুমিল্লায় বিএনপির দুই প্রার্থী তাদের প্রার্থিতার বৈধতা ফিরে পেয়েছেন। নির্বাচন কমিশনে (ইসি) করা আপিলের পর বৃহস্পতিবার মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই শেষে বৈধতা পেয়েছেন বিএনপির ওই দুই প্রার্থী।

তারা হলেন কুমিল্লা-৫ (ব্রাহ্মণপাড়া-বুড়িচং) আসনের বিএনপি প্রার্থী মো. ইউনুছ ও কুমিল্লা-৩ (মুরাদনগর) আসনে বিএনপি প্রার্থী এ কে এম মুজিবুল হক। আপিল আবেদনের শুনানির প্রথম দিন বৃহস্পতিবার নির্বাচন কমিশনের অস্থায়ী এজলাসে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদার নেতৃত্বে শুনানি শেষে তাদের প্রার্থিতা বৈধতা দেন।

গত ২ ডিসেম্বর প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই শেষে কুমিল্লা জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. আবুল ফজল মীর বিএনপি প্রার্থী অধ্যক্ষ মো. ইউনুসের সকল কাগজপত্র সঠিক থাকলেও তার কাগজপত্রের নোটারি যে আইনজীবী করেছেন সে আইনজীবীর নোটারি করার রেজিস্ট্রেশন মেয়াদোত্তীর্ণ এবং নবায়ন না করায়

মনোনয়নপত্রটি বাতিল করেন। এবং আয়কর সনদ না দেয়ায় কে এম মজিবুল হকের মনোনয়নপত্রটিও বাতিল ঘোষণা করা হয়। যদিও কে এম মজিবুল হক দাবি করেছিলেন তিনি মনোনয়নপত্রের সাথে আয়কর সনদ জমা দিয়েছেন। পরে প্রার্থিতা ফিরে পেতে নির্বাচন কমিশনে (ইসি)
আপিল আবেদন করেন এ দুই
প্রার্থী।
আপিলে অনেকে প্রার্থিতা ফেরত পাওয়ায় কারাবন্দি দলীয় চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে নিয়ে আশায় বুক বেঁধেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। নির্বাচনী আপিল ট্রাইব্যুনালের কার্যক্রম শুরুর দিন বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, “আমি মনে করি, আমাদের দলের অনেক প্রার্থীর

মনোনয়নপত্র বৈধ হওয়ার ঘোষণা একটা বিজয়। আমাদের আন্দোলনে আমাদের প্রার্থীরা বৈধ হয়ে এসেছেন এবং তারা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে পারবেন।


“আমি এটাও আশা করি যে, ন্যায়বিচার যদি প্রতিষ্ঠিত হয় তাহলে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াও নির্বাচনে বৈধ প্রার্থী হিসেবে ঘোষিত হবেন, বিবেচিত হবেন।”

ফৌজদারি মামলায় দণ্ডিত খালেদা একাদশ সংসদ নির্বাচনে বগুড়া-৬ ও ৭ এবং ফেনী-১ আসনে প্রার্থী হতে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছিলেন। কিন্তু দুই বছরের বেশি সাজা হওয়ার কারণ দেখিয়ে ফেনী ও বগুড়ার রিটার্নিং কর্মকর্তারা গত ২ ডিসেম্বর যাচাই বাছাই শেষে বিএনপি চেয়ারপারসনের তিনটি মনোনয়নপত্রই বাতিল

সূত্র – ঢাকাটাইমস

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*